ধর্ষন

0
654

আমাদের দেশে ধর্ষনের সংখ্যা দিনে দিনে বেড়েই চলেছে ! এখন প্রায় প্রতিদিন গড়ে ৩-৪ জন নারী ধর্ষণের শিকার হচ্ছে! তার ৩ জনে আবার ১ জন করে শিশু ধর্ষিত হচ্ছে। কিন্তু ১ বছর আগেও এতো ধর্ষনের খবর পাওয়া যেতোনা। হঠাৎই বাংলাদেশে কি এমন ঘটলো.? চলুন একটু পেছনে ফিরে দেখা যাক, তনুকে ধর্ষন করে হত্যা করা হলো কোনো বিচার হয়নি!!। শুধুই তনু নয় এরকম শত শত তনুর ঘটনা রয়েছে, এই যেমন ধরুন জাতীয় নির্বাচন কে কেন্দ্র করে গনধর্ষনের শিকার হয়েছিলেন সুবর্নচরের ৪ সন্তানের জননী। বিচার কিন্তু তিনি ও পাননি।বাগের হাটের মোরেলগঞ্জ উপজেলায় ৬ষ্ঠ শ্রেনীর এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের পর তার নিজ গৃহে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছিল কিন্তু ঘটনা একই বিচার হয়নি!! সম্প্রতি রাজধানীতে ৭ বছর বয়সী সায়মাকে ধর্ষনের পর শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়,বিচারের দাবি জানিয়েছে সায়মার পরিবার কিন্তু এখনও ধর্ষককে ফাসির আদেশ দেয়া হয়নি। ঠিক এই কারনগুলোর জন্যই আজ ধর্ষকদের ধর্ষনের প্রবনতা বেড়ে গেছে কারন ধর্ষকেরা জানে এদেশে ধর্ষনের কোনো বিচার হয়না। জানিনা আমাদের সামিজিক অবক্ষয় আর কতটা নিচে নামবে!! কোমলমতি শিশুদের যারা এই ভয়ংকার পরিস্থিতি স্বীকার বানিয়েছে তাদেরকে উপযুক্ত শাস্তির দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশের সর্বস্তর এর জনগন।দেশের সকল মানুষের দাবি “ধর্ষন মুক্ত বাংলাদেশ চাই” কিন্তু তারপর ও উপযুক্ত শাস্তি পাচ্ছে না ধর্ষক,বিচার পাচ্ছেনা দেশের মানুষ।সম্প্রতি সায়মার ধর্ষন নিয়ে কঠোর বিচারের দাবি জানাচ্ছে দেশবাসী।ধর্ষনের শাস্তি “ফাসির “দাবীতে আমাদের সকলকে ঐক্যবদ্ধ ভাবে আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে এবং সবাইকে সর্তক থাকতে হবে এমনটাই মনে করেন দেশের সচেতন মানুষেরা ।

মামুন,মাগুরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here