ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ইন্ডিস্ট্রিয়াল কোথায় করবেন?

0
533

২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীরা ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সের একেবারে চূড়ান্ত ধাপে অবস্থান করছে ; এসময়টাতে বেশিরভাগ ছাত্র ছাত্রী-ই সিদ্ধান্তহীনতায় ভুগছে। তার প্রধান কারন ইন্টার্নশীপ। কোন প্রতিষ্ঠানে গেলে ভালো হবে? কোন বিষয়ে কোর্স করলে সহজেই চাকরী হবে?কোথায় থাকবো?  কিভাবে থাকবো?ইত্যাদি ডট ডট ডট…; অনেকে ভাবছে উচ্চ শিক্ষার জন্য ডুয়েট কোচিং করবো নাকি একটা জব করবো পাশাপাশি বেসরকারী ইউনিভার্সিটিতে বিএসসি করবো;

এরমধ্যই প্রায় ২০-২৫ টা প্রতিষ্ঠান তাদের একগুচ্ছ সাফল্য তোমাদের সামনে উন্মোচন করে তোমাদের আরো বেশি দ্বিধায় ফেলে দিয়েছে ;ইন্ডাসট্রিয়াল ট্রেনিংয়ের সময়কাল সর্বোপরি ৬ মাস ; এই ৬ মাসের মধ্যে ক্লাস হবারর কথা ৩ দিন করে ; তুমি যাবে ক্লাস শুরু হবার ১৫ দিন পর ; ভাববে নতুন ঢাকায় আসলাম একটু ঘুরে দেখি ; এরপর স্যার অসুস্থ তুমি অসুস্থ আবহাওয়া খারাপ ইত্যাদি মোট মিলিয়ে ক্লাস করবে সর্বোচ্চ ২০ থেকে ২৫ । ম্যাক্সিমামই মনে করছো এই ৬ মাসই তোমার ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার হবার একমাত্র যোগ্য সময় এসময়েই আমি সব শিখে ফেলবো; আচ্ছা একটা কথা বলতে পারো সাড়ে ৩ বছরে ৭ জন অভিজ্ঞ  শিক্ষকের গাইডলাইনে তুমি যদি একটা প্রোগ্রাম ঠিকমত রান করাতে না পারলে ২০ টা ক্লাসে পারবে?? অনেকে বলছো ভাই অমুক প্রতিষ্ঠান বলছে যতদিন কাজ না শিখবে ততদিন কাজ শেখাবেই!  কথাটা কত সুন্দর তাই না তোমাকে ওই প্রতিষ্ঠান কতটা টেক কেয়ার করে ; আচ্ছা তোমাকে কাজ শেখানোর তাদের এতটা ইচ্ছা থাকলে তারা শুধু ইন্টার্নশীপের সময় কেন আসে? ১ বছর আগে থেকে শেখালে তো তাদের কষ্ট করে  ৩ মাসে বাড়তি ক্লাসের চাপ নেওয়া লাগে নাহ। হ্যাঁ ক্যারিয়ার গড়ার জন্য গুরুত্বপূর্ন এই সময়টা কিন্তু কতটা ইফেক্ট পড়বে তোমার কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার হতে সেটা তোমার সিনিয়র ভাইদের দিকে লক্ষ করলেই স্পষ্ট হবে।

#আমি যেটা বলবো প্রতিটা প্রতিষ্ঠান তোমাকে যে আশ্বাসই দিক না কেন তাদের একমাত্র উদ্দেশ্য টাকা উপার্জন তোমাকে শেখানো তাদের মূখ্য উদ্দেশ্য নয়। সিজিনাল বিজনেস হুট করেই তাদের উদয় হয় ; এত স্বল্প সময়ে কোন প্রতিষ্ঠান দ্বারা একটা সম্পূর্ন নতুন প্রোজেক্ট তোমাকে দিয়ে স্ট্যান্ড করানো সম্ভব নয়।

তাহলে সবাই যদি ব্যবসা করে তাহলে কি ইন্ডাসট্রিয়াল করবা না? অবশ্যই করতে হবে। তোমার ভবিষ্যত সাপোর্ট হিসাবে বাস্তবিক প্রশিক্ষন প্রয়োজন রয়েছে ;

ইন্ডাসট্রিয়ালের বাংলা অর্থই বাস্তব প্রশিক্ষন।

এখন এমন বাস্তব প্রতিষ্ঠানে বাস্তব প্রশিক্ষন নিতে গেলে যেখানে তোমার বাবার দেওয়া ৮০০০০ টাকাই অবাস্তব হয়ে গেল।

কেমন প্রতিষ্ঠান নির্বাচন করবে?  আমি দেখেছি তোমরা বেশিরভাগ সময়ই প্রতিষ্ঠান নির্বাচন করতে

বড় ভাইদের ফোন দিয়ে জিজ্ঞাসা করছো কোথায় যাবো যেমনটি আমাকেই অনেক জন ফোন দিয়েছো ; বড় ভাইয়েরা আসলে তখন মনে করবে আমি তো অনেক কিছুই জানি জিজ্ঞাসা করছে না বললে তো সমস্যা আমার রেপুটেশনের ব্যাপার তাও যদি মেয়ে হয়!; তখন বলবে- হ্যাঁ ওইটা ভালো এইটা ভালো যদি ইন্ডাসট্রিয়াল শেষে কেউ কিছু শিখতে না পারো ভাইদের গালি দিবা আজও এক বড় ভাই বলল বড় ভাইয়ের কথা শুনে সব শেষ!  আবার যে কিছু জানতো না সে জাস্ট পেন টুলসের কাজ শিখেই মহাখুশি ভাইকে পারলে মিস্টি খাওয়ায়! দেখলাম তোমারা বেশিরভাগই গ্রাফিক্স ডিজাইন করতে চাও? তোমাদের প্রশ্ন থাকা উচিৎ কেন গ্রাফিক্স কোর্স করবা? তোমার এই বাস্তব প্রশিক্ষন অন্য কাউকে খুশি করার জন্য যেন নয় এই বন্ধু তো গ্রাফিক্সে করছে তাহলে আমিও করি ; বান্ধবী তো ওয়েব ডিজাইন করবে আমিও ওইটা করবো প্লিস এগুলো কেও কইরো না ; তুমি যদি মনে করো নেটওয়ার্কিংয়ে কোর্স করে তুমি সিসিএনএ সার্টিফাইড হবা নেটওয়ার্ক সেক্টরে কাজ করবা তুমি শুধু তোমার কথায় ভাবতে হবে তোমার বন্ধু তো ওয়েব ডিজাইন শেষে ডেভলপ শিখবে তুমি তো ডিজাইনই পারো না!

আমাদের শিক্ষকেরা অবশ্যই ঠিক সেই গালির ভয়ে কিছু তোমাদেরকে কিছু বলবে না যদি স্যারের পছন্দের প্রতিষ্ঠান তোমার সাথে  না যায় তো বলবা স্যার টাকা নিয়ে আমাকে এ জায়গা পাঠিয়েছে তবে এটুকু মনে রাখবে কোন শিক্ষকই চাই না তার কোন ছাত্র খারাপ জায়গাতে যাক খারাপ থাকুক! কম্পিউটার জগতে সবথেকে মূল্যবান প্রোগ্রামিং তোমার শিক্ষিত ম্যাক্সিমাম আত্নীয়ই বলবে তুমি প্রোগ্রামার হও সেজন্যই কেবল তুমি প্রোগ্রামার হতে পারবে না কারন তুমি গ্রাফিক্স পছন্দ কর অন্যর পছন্দ ছেড়ে নিজে পছন্দ কর!  তোমাদের উচিৎ স্যারদের সাথে জোর করে হলেও সঠিক পরামর্শ নেওয়া।

আমি যে প্রতিষ্ঠান সবাইকে সাজেস্ট করবো তার প্রথমেই #বেসিস(BASIS) এই জায়গাটা অন্তত পক্ষে নিয়মিত ক্লাস করলে তোমাকে হতাশ করবে না বিশেষ করে যারা গেম ডিজাইন /ডেভলপমেন্ট, অ্যাপস নিয়ে কাজ করতে ইচ্ছুক এদের কস্টটা একটু বেশি তবে খুবই কার্যকরী ;

দ্বিতীয়ত ভালো কোন সফটওয়্যার ফার্ম ;

ইদানিং গ্রাফিক্সের জন্য #ক্রিয়েটিভ আইটি(ধানমন্ডি) খুবই ভালো খোঁজ নিয়ে দেখতে পারো ; ওয়েব ডিজাইনের জন্য #কোডার ট্রাস্ট বিডি(বনানী) যোগাযোগ করে দেখতে পারো তবে অবশ্যই যেতে বলছিনা খোঁজ নাও;

তবে সকলকেই অনুরোধ করবো দীর্ঘমেয়াদি কোর্সে ভর্তী হবার জন্য ২০ টা ক্লাসের শর্ট কোর্সে তুমি শুধু ৮০০০০ টাকাই নষ্ট করবা যে সার্টিফিকেট পাবা ওইটা ১৫ টাকা দিয়ে প্রিন্ট করা!! আর যারা ডুয়েট নাকি ইন্ডাসট্রিয়াল নিয়ে গভীর চিন্তিত তাদের একটা কথাই বললো কোচিংয়ে যাবার পূর্বে একটা কথাই স্মরনে রাখবে তুমি যদি দ্বিতীয়বার পরীক্ষা দিতে প্রস্তুত থাকো তো যাও; কারন প্রথমবারেই তোমার ভাগ্যর বা মেধার গুনাগুন বিচার হবে না ; তার পরে তুমি ডুয়েটের জন্য কিনা ; কিংবা ডুয়েট তোমার জন্য কি না একটু ভালো করে চিন্তা করবা ; বড় ভাইয়ের কথা শুনে পাগল হবে না ; যতই লোভ দেখাক চাকরী পাবাই এসব সত্য নয়। এসময়টা গুরুত্বপূর্ন সো যে সিদ্ধান্তই গ্রহন কর না কেন একটু ঠান্ডা মাথায় ভেবে ; অনেকের প্রশ্নের উত্তর পেয়েছো হয়তো ; উচ্চতর শিক্ষা নিয়ে পরে একসময় বলব আগে সফলভাবে বাস্তব প্রশিক্ষন শেষ কর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here