উত্তর কোরিয়ার ১০টি ভাল দিক যা অন্য দেশে নেই..

0
615

সব দেশেরই ভাল এবং খারাপ গুণ থাকে। তবে এবারে জেনে নেয়া যাক উত্তর কোরিয়ার ভাল গুণ গুলো। যে গুণ গুলো অন্য দেশ থেকে এ দেশটিকে আলাদা করে রেখেছে।

০১. জ্যাম বিহীন ও কম দূষনের দেশ। এখানে প্রাইভেট গাড়ীর পরিমাণ খুবি কম। কারণ এখানে কেউ চাইলেই গাড়ী কিনতে পারে না। গাড়ী কিনতে হলে তাকে সরকারের থেকে অনুমতি নিতে হয়। তাও ১০০০ জনে অনুমতি পায় মাত্র ১ জন। আর এই গাড়ী কিনতে অনুমতি পায় সরকারি চাকরিজীবী, সেনাবাহিনীর সদস্য ও বড় ব্যবসায়ীরা। যার ফলে এখানে জ্যাম ও শব্দ দূষণ নেই বললেই চলে।

০২. চাইলেই AC চালাতে পারবেন না। এবং এখানকার শিল্প-কারখানার জন্য বিশেষ নিয়ম মেনে চলতে হয়। এর ফলে অন্যান্য দেশের তুলনায় এখানকার আবহাওয়া ভাল।

০৩. উত্তর কোরিয়ার সংস্কৃতি। প্রতেক দেশের একটা নিজস্ব সংস্কৃতি রয়েছে। এবং তাদের উচিৎ নিজস্ব সংস্কৃতি বহন করা। কিন্তু উত্তর কোরিয়ার আইন করে নিজস্ব সংস্কৃতি মানতে বাধ্য করা হয়ে থাকে।

০৪. ফ্রী হাউজিং সুবিধা। মানুষের মৌলিক চাহিদা গুলোর মধ্যে প্রধান হচ্ছে আবাসন সুবিধা। এই দেশের নাগরিকদের ফ্রী আবাসন সুবিধা দেয়া হয়ে থাকে। তাছাড়া শিক্ষা ও চিকিৎসা সুবিধাও ফ্রী দেয়া হয়ে থাকে।

০৫. পরিছন্ন রাজধানী। সব দেশের রাজধানীতে প্রায় দেশের অধিকাংশ মানুষ বাস করে। কিন্তু উত্তর কোরিয়ার রাজধানী পিয়ং ইয়ং এ কারা কারা বাস করবে সেটা নির্ধারণ করে দেয় সরকার। অর্থাৎ চাইলেই কেউ রাজধানীতে থাকতে পারবেনা অনুমতি নিতে হবে সরকারের।

০৬. মেধাবীদের মূল্যায়ন। গরীব দেশগুলোর মেধাবি ছাত্ররা স্কলার শিপ নিয়ে বিদেশ চলে যেতে পারে। এবং তারা এর ফিরে আসতে না। যার ফলে একটি দেশ মেধার দিক দিয়ে পিছিয়ে পড়ে। কিন্তু উত্তর কোরিয়া এ ব্যাপারে খুব হুঁশিয়ার কারণ এদেশ থেকে চাইলেই কেউ অন্য দেশে যেতে পারে না। এমনকি বেড়াতেও না। এবং ওই দেশের মেধাবীদের নিজের দেশেই আকর্ষণীয় চাকরির ব্যবস্থা করে দেয়। একটি দেশের সবচেয়ে ভাল গুণ দেশের সবচেয়ে মেধাবীদের দেশের সবচেয়ে ভাল কাজে লাগান।

০৭. শক্তিশালী সেনাবাহিনী। একটি দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষার সবচেয়ে বড় হাতিয়ার হল ওই সেনাবাহিনী। কিম জং উন উত্তর কোরিয়ার প্রধানমন্ত্রী। তিনি তার দেশের সেনাবাহিনীকে সবচেয়ে বেশি সর্বচ্চ আদর যত্ন করেন। এবং তার বাজেটের সিংহ ভাগ তিনি ব্যয় করেন সেনাবাহিনীর পিছনে।

০৮. কম অপরাধ প্র্রবনতার দেশ। উত্তর কোরিয়া এমন একটি দেশ যেখানে কেরাইম রেট খুবই কম। এই দেশে আইনের সঠিক ব্যবহারের ফলে এখানকার মানুষ অপরাধ করতে ভয়পায়। এখানে মদ্য পান করা নিসেদ। এখানে নেসা জাতীয় কোন দ্রব ক্রয় ও বিক্রয় নিসেদ।

০৯. বিশ্বের সবচেয়ে বড় স্টেডিয়াম। উত্তর কোরিয়ার সরকার তাদের হাতে এমন কিছু ফোন দিয়েছে যা দিয়ে শুধু মাত্র কথা বলা, ও ক্যালকুলেটরে হিসাব করা যায়। তারা মনে কররেন সুস্থ থাকার জন্য শরীরচৰ্চা এবং খেলাধুলার বিকল্প নাই। তাই ওই দেশের সরকার বিশ্বের বড় স্টেডিয়াম তাদের দেশেই তৈরি করেছেন।

১০. সর্বচ্চ ধৈর্যের সীমা। কিম জং উন উত্তর কোরিয়ার জনগণকে কঠর নিয়ম কানুনের মধ্যে রাখে। তাতে এখানকার জনগণের মানব বন্ধন করার কথা ছিল। কিন্তু না তারা সেটি করেন না বরং তারা কিম জং উনকে নিজেদের জীবনের চেয়েও বেশি ভাল বাসে। তারা তাদের দেশকে ভাল ভাবে এটা চরম ধৈর্য শীলতার পরিচয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here