আপনার শিশুর প্রথম বছর

0
614

সন্তান সৃষ্টিকর্তা প্রদত্ত প্রতেক পিতা মাতার জন্য এক বিশেষ নিয়ামত।একটি শিশুর জন্ম পরিবারে নিয়ে আসে অনাবিল সুখ,শান্তি ও আনন্দ। একটি শিশুর জন্মগত কোন রোগ থাকলে সেটা ডাক্তারেরা পরীক্ষা নিরীক্ষার মাধ্যমে সেটা বলে দেন সমাধানের উপায় ও বলে দেন।কিন্ত একটি শিশুর শারীরিক ও মানসিক বিকাশ সঠিকমত হচ্ছে কিনা বয়স বৃদ্ধির সাথে সাথে সবকিছু পজিটিভ হারে বাড়ছে কিনা সেটা পর্যবেক্ষণ করা প্রতেক মা বাবার দায়িত্ব এবং কর্তব্য ।শিশুটি জন্ম নেওয়ার পর থেকে প্রতিটা বছর শিশুর জন্য গুরুত্বপূর্ণ এই প্রতিটা বছরে শিশুটির বিকাশ ঘটে। প্রথম বছরটাতে শিশুটি খুবই গতীশীল এবং শিশুটির ভবিষ্যৎ বৃদ্ধির প্রথম ভিত্তি । প্রথম বছরে শিশুটি অন্য সময়ের থেকে দ্রুত বৃদ্ধি পায় ।এভাবে সে নতুন নতুন কিছু শিখতে শিখতে মা বাবা আত্নীয়ের সাথে ভাব বিনিময় করতে শেখে। তবে সঠিক পর্যবেক্ষণ করতে না পারলে তার উল্টো ও হতে পারে।

 

১ থেকে ৩ মাসে শিশুর অবস্থা

মাথা এক দিকে রেখে চিত হয়ে থাকে।

হাতের মুঠো বন্ধ করে রাখে।

মায়ের সামান্য শব্দ চেহেরা এবং স্পর্শ বুঝতে শিখে।

হঠাত শব্দে চমকে যায়।

শিশুর দিকে তাকিয়ে হাসলে সে ও হাসে।

ক্ষুধা লাগলে কাঁদে প্রসাব পায়খানার অনুভব হলে অস্বস্তি অনুভব করে।

৩ থেকে ৬ মাস

শিশুকে মাথা সোজা করে ধরলে সে মাথা সোজা করতে পারে।

চিত হয়ে শুয়ে দুই হাত পা সমান ভাবে নাড়ে।

হাতের মুঠো প্রায়ই খোলা থাকে ।

বিভিন্ন জিনিসের নাড়াচাড়া অনুভব করে।

আপনার বাচ্চা খেতে না চাইলে কি করবেন ?

৬ থেকে ৯ মাস

দুই হাত জড়ো করে খেলতে শিখে

বসিয়ে দিলে কিছুক্ষন বসতে শেখে।

খেলনা ধরে হাতবদল করতে শেখে।

বড়দের সাথে হাসতে শেখে।

দুধ খাওয়া বন্ধ করে কথা শোনে।

৯ মাস থেকে ১২ মাস

হামাগুরি দিতে শিখে।

আপজনের কোলে বসেও অপরিচিত মানুষ দেখলে ভয়ে কাঁদে।

হাত নেড়ে বিদায় জানায়।

দৃষ্টি আকর্ষণ করানোর জন্য শব্দ করে।

১২ মাস………

ভালোভাবে দাড়াতে পারে

আঙ্গুল ব্যবহার করে নিজে খেতে চেস্টা করে।

কিছু কিছু শব্দ বলতে চেস্টা করে যেমন বই ,ভাত,আম…

লুকোনো খেলনা খুজতে চেষ্টা করে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here